৫ই এপ্রিল, ২০২০ ইং, রবিবার, ২২শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১১ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • দেশজুড়ে
  • রায়গঞ্জে কবরস্থান নিয়ে আদালতে মামলা সরকারের হস্তাক্ষেপ কামনা গ্রামবাসীর

রায়গঞ্জে কবরস্থান নিয়ে আদালতে মামলা সরকারের হস্তাক্ষেপ কামনা গ্রামবাসীর

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, নয়া আলো।

আপডেট টাইম : মার্চ ২৫ ২০২০, ১৬:৫৮ | 667 বার পঠিত

বিগত ৬০ বছর যাবত কোন মানুষ মারা গেলে পাঁচ গ্রামের বাসিন্দাদের দাফন করে আসা হতো বিঞ্চুপুর কবরস্থানে । কিন্তুু কয়েক বছর যাবত নিড়াশা ও দু’চিন্তায় দিন কাটছে সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলায় নলকা ইউনিয়নের বিঞ্চুপুর গ্রামের বাসিন্দাদের ফলে ওই এলাকায় মানুষ মারা গেলে দাফন করতে নানা রকম হয়রানী ও বিরম্বনার স্বাীকার হতে হচ্ছে তাদের। বর্তমানে ওই এলাকায় সব সময় উত্তেজনা বিরাজ করছে ফলে যে কোন সময় বড় ধরনের বিসৃঙ্খলা সৃষ্টির সম্ভবনা রয়েছে ।

সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, পাঁচ গ্রামের মৃত ব্যক্তিদের দাফন করার জন্য ১৯৬১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় বিঞপুর কবরস্থান । প্রায় ৬০ বছর যাবত ওই কবরস্থানে মৃত ব্যক্তিদের দাফন করে আরছিল গ্রাম বাসী । কিন্তু উক্ত জায়গাটি আর.এস রেকর্ড অনুযারী কবরস্থানের নামে থাকলেও , এস.এ ও সি.এস রেকর্ড ব্যক্তি মালিকালধীন থাকায় তা তারই জের ধরে ২০১৩ সালে আদালতে মামলা দায়ের করেন চর- বিঞ্চুপুর গ্রামের মৃত কানু আকন্দর ছেলে আস্তহার আলী। সেই মামলায় গ্রামবাসী কোন খোঁজ খবর ও প্রদক্ষেপ না নেওয়ায় এক তরফাভারে ডিগ্রী পায় আস্তাহার আলী । আর সেই ডিগ্রী জেরে ২০১৭ সালে কবরস্থানের প্রায় ২,০০০০০ (দুই লক্ষধিক টাকার ) কবরস্থানের সকল পুরোনো গাছ কেটে বিক্রিয় করে দেয় সে । কাছ কাটতে গ্রামবাসী বাধাঁ দিলে কবরস্থানের ম্যানিজিং কমিটির কয়েক ব্যক্তির নাম উল্লেখ্য করে , বাড়িতে আগুন দেওয়া , চাদীবাজী, শৃঙ্খলা ভঙ্গের তিনটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন আস্তাহার আলী ।

পরে আদালত মামলা গুলো তদন্ত করলে মিথ্যা প্রমানিত হয় পরে মামলার সকল বিবাদী সকলকেই ওই সকল মামলা থেকে অব্যহতি দেয় আদালত।

বর্তমানে আর.এস রেকর্ডটি কবরস্থানের নামে হওয়ায় জায়গাটি ফিরে পেতে সরকারের পক্ষ থেকে আপীল করা হয়েছে বলে জানা গেছে । বর্তমানে মামলাটি আদালতে বিচারধীন রয়েছে ।

এ বিষয়ে বিঞ্চুপুর গ্রামের মৃত শমসের আলীর ছেলে আব্দুর রহমান জানান, ১৯৬১ সাল থেকে পাঁচ গ্রামের মৃত ব্যক্তিদের এই বিঞ্জপুর কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে

একই এলাকার মৃত রজব আলীর ছেলে শাখওয়াত হোসেন বলেন,জম্মের পর থেকে দেখছি এই জায়গায় কবরস্থান আমাদের বাপ চাচাদের এই কবরস্থানে দাফন করেছে । তাছাড়াও এই কবরস্থানে কানু আকন্দসহ বউ ,ছেলেদের এই কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে । কানু আকন্দ মারা যাওয়ার পর তার পুত্র আস্তাহার আলী দাবি করছে এই সম্পত্তি তার সে মামলা করে ভুয়া সাক্ষী বানিয়ে এক তরফা ডিগ্রী পায় ।

একই গ্রামের শমসের আলীর পুত্র আব্দুল কাদের জানান, আমাদের ময়-মুরুব্বি পূর্ব পুরুষদের মৃত দেহকে দাফন করে আরছিল এমতাবস্থায় আস্তাহার আলী নামক এক ব্যক্তি তাদের জমি বলে দাবি করে কিন্তু ১৯৬৪ সালে এক ব্যক্তি কবরস্থানের নামে দলিল করে লিখে দিয়েছে তার পর থেকে কবরস্থান হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে । তাছাড়া আর.এস জরিপে মুসলমানদের সর্ব সাধারনের ব্যবহারের কথা উল্লেখ্য আছে ।

বিঞ্চুপুর গ্রামের মৃত হাজী মোবারক আলীর ছেলে আব্দুল মতিন জানান, মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রামবাসীকে হয়রানি করা হচ্ছে তাই সরকারে কাছে আকুল আবেদন দয়া করে স্ব-চোখে তদন্ত করে আমাদের ৬০ বছরের কবরস্থানটি যেন রক্ষা পায় ।

এ বিষয়ে চর বিঞ্চুপুর গ্রামের বাসিন্দা মামলাকারী আস্তাহার আলী সাথে কথা বললে তিনি জানান এই সম্পত্তি আমার বাপ দাতার রেখে যাওয়া সম্পত্তি সি.এস ও এস.এ রেকর্ড এর জেরে মামলাটি করেছিলাম ।

অনেক বছরে পুরোনো এই কবরস্থানটি যেন পুনারায় ফিরে পায় তদন্ত পূর্বক সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছে বিঞ্চুপুর গ্রামবাসী ।

 

Please follow and like us:
error13
Tweet 20
fb-share-icon20

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 3590690আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 21এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৭৪৯৮২৩৭০৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET