২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং, সোমবার, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৮শে জমাদিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • দেশজুড়ে
  • বাগমারায় লুৎফর বাহিনীর প্রধান লুৎফর রহমানসহ গ্রেপ্তার ৫

বাগমারায় লুৎফর বাহিনীর প্রধান লুৎফর রহমানসহ গ্রেপ্তার ৫

নাজিম হাসান, রাজশাহী করেসপন্ডেন্ট।

আপডেট টাইম : জানুয়ারি ২৩ ২০২০, ১৪:৪৭ | 678 বার পঠিত

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় সাবেক চেয়ারম্যান লুৎফর বাহিনীর প্রধান লুৎফর রহমানসহ ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। বুধবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল উপজেলার বাসুপাড়ায় লুৎফরের নিজ বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে হাতে নাথে গ্রেপ্তার করে। এছাড়া বাসুপাড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে সন্ধ্যা থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে কথিত এই বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ডসহ মোট ৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, লুৎফর রহমান,রফিকুল ইসলাম রফি,অব্দুল রাজ্জাক,আবজাল হোসেন ও কামরুল ইসলাম। পুলিশ ও এলাকাবাসি জানান,গত ২০১৩ সালের ইউপি নির্বাচনে মনোনয়ন চেয়ে আকস্মিক ভাবেই রাজনীতিতে আর্বিভূত হন এলাকার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জনপ্রিয় প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান। তিনি এলাকার লোকজনের জোরাজুরিতে সে সময় মনোনয়ন নেওয়ার জন্য সরকারি চাকুরী থেকেই ইস্তফা দেন। স্থানীয় এমপি’র নিকট আত্মীয় হওয়ার সুবাধে তিনি সে সময় মনোনয়নও পেয়ে এবং নির্বাচেন বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। প্রধান শিক্ষক থেকে ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফর এবার নিজের আখের গোছানোতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন এবং পরম শিষ্য হিসাবে বেছে নেন শিষ্য হিসাবে বেছে নেন একই ইউনিয়নের চৌকষ জাবের আলীকে। এলাকার মন্দিয়াল গ্রামের মৃত বুদাই গাইনের পুত্র জাবের আলী অসহায় দরিদ্র পরিবারের সন্তান। ইউপি ভোটে জয়লাভের পর চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান নিজস্ব কিছু পুকুর নিয়ে মাছ চাষ শুরু করেন। এ সময় তিনি মাছের খাদ্যের ব্যবসাও চালু করেন। শুরুতে এই মাছের খাদ্য বিক্রির দায়িত্ব দেন এই জাবের আলীর ওপর। এভাবে দিনে দিনে জাবের আলী চেয়ারম্যানের ক্যাডারে পরিনত হয়ে এলাকার বিল খাল ও পুকুর দখল করে চেয়ারম্যানকে কাঁচা টাকার গন্ধে মশগুল করে তোলেন। স্থানীয়রা জানান, চেয়ারম্যান এই চতুর জাবেরের চিকন বুদ্ধিতে প্রভাবিত হয়ে পশ্চিম নাককাটি, পূর্বনাককাটি, মরা বিলা সহ বেশ কিছু বিল দখলে মরিয়া হয়ে ওঠেন। ইউপি চেয়ারম্যান ও ক্ষমতাশীন দলের নেতা হওয়ায় চেয়ারম্যানের এসব দখল বানিজ্যে কেই বাঁধা দিতে সাহস পায় না এবং চেয়ারম্যানের ক্যাডার হিসাবে জাবেরও হয়ে পড়েন অপ্রতিরোধ্য। এভাবে কয়েক বছরের মাথায় জাবেরের সুবাধে চেয়ারম্যান রাতারাতি কোটিপতি বনে যান। শিষ্যের বুদ্ধিতে গুরুর কোটিপতি হওয়ায় এ সময় শিষ্যের মনেও লোভ প্রতিহিংসার জন্ম নেয়। চলে আসে আবার ইউপি নির্বাচন। সর্বশেষ ইউপি নির্বাচনে দললীয় প্রতীক নৌকা পেয়েও চরম ভরাডুবির শিকার হন লুৎফর রহমান। সন্দেহ চলে আসে শিষ্য জাবের আলীর প্রতি। এখান থেকেই গুরু শিষ্যের বিচ্ছেদ ঘটে। এবারে উভয়ে একে অপরকে দমনের জন্য মরিয়া হয়ে গড়ে তুলেন নিজস্ব বাহিনী। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩ ডিসেম্বর জাবের বাহিনীর হামলার শিকার হন বীরকয়া গ্রামের মোবারক হোসেন(৪৫)। জাবের বাহিনীর লোকজন পিটিয়ে তার হাত পা ভেঙ্গে দেয়। বর্তমানে তিনি পুঙ্গত্ব জীবন যাপন করছেন। এর সপ্তাহ খানেক আগে জাবের বাহিনীর লোকজন হামলা চালায় মোবারকের স্ত্রী আঞ্জুরী বেগমের (৩৫) উপর। তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা চালিয়ে ঘুমন্ত আঞ্জুরী বেগমের ডান স্তন কেটে দেয়। এ ঘটনায় জাবের সহ তার ১৭ ক্যাডার বাহিনীর বিরুদ্ধে মামলাও দায়ের করা হয়। একই ভাবে জাবের বাহিনীর হামলার শিকার হন কুতুবপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেন(৫৫)। এই হামলায় আনোয়ার এক পা হারিয়ে এখন স্ক্যাচে ভর দিয়ে চলাফিরা করেন। স্থানীয় গ্রামবাসী ও জনপ্রতিনিধিদের মতে, জাবের বাহিনীর এসব হামলা ও নির্যাতন প্রতিরোধ করতে পাল্টা নিজস্ব বাহিনী গড়ে তুলেন লুৎফর রহমান। একই মাসের গত ১৯ ডিসেম্বর লুৎফর বাহিনীর লোকজন রাতের অন্ধকারে হামলা চালিয়ে জাবের বাহিনীর অন্যতম মোতালেব((২৫) নামে এক ভ্যান চালককে পিটিয়ে হাত পা ভেঙ্গে দেন। বর্তমানে ওই হামলায় মোতালেবও পুঙ্গত্ব জীবন যাপন করছেন। ভ্যান চালাতে না পেয়ে সে এখন পরিবার নিয়ে বড়ই অসহায় হয়ে পড়েছে। এই হামলার ঘটনায় মোতালেব বাদী হয়ে লুৎফর বাহিনীর ১০ ক্যাডারের বিরুদ্ধে বাগমারা থানায় আরো একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার অন্যান্য আসামীরা হলেন, বীরকয়া গ্রামের খোদা বক্্েরর পুত্র মৈয়দ আলী(৪৫), একই গ্রামের সামাদ সরদারের পুত্র আশরাফুল(২৭), আজিবুরের পুত্র গিয়াস(৩০), আফসার আলীর পুত্র রফিকুল ওরফে ভুট্রো(৩২), হুসেন আলীর পুত্র মহসিন আলী(২৬), মৃত জসিম উদ্দিনের পুত্র হাবিবুর রহমান ওরফে হবি(৪৫), আজিবুরের পুত্র নাছির উদ্দিন(৩২), মছির উদ্দিনের পুত্র ওছির উদ্দিন(৫৫), মৃত সমতুল্যার পুত্র আজিবর রহমান(৫২) ও মেরু মন্ডলের পুত্র মকছেদ আলী(৪৫)। এবিষয়ে জানতে চাইলে বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) আতাউর রহমান গ্রেফতার নিশ্চত করে জানান, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। এবং তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

Please follow and like us:
error0
Tweet 20
fb-share-icon20

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 3422603আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 10এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৭৪৯৮২৩৭০৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET