৫ই এপ্রিল, ২০২০ ইং, রবিবার, ২২শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১১ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • দেশজুড়ে
  • বাগমারায় মামলায় অব্যাহতি পাওয়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে বাদীর উর্দ্ধতন কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ

বাগমারায় মামলায় অব্যাহতি পাওয়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে বাদীর উর্দ্ধতন কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ

নাজিম হাসান, রাজশাহী করেসপন্ডেন্ট।

আপডেট টাইম : মার্চ ২৪ ২০২০, ২১:৪৭ | 632 বার পঠিত

মূল আসামীকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়ে আদালতে চুড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করায় রাজশাহীর বাগমারা থানার যোগীপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপপরির্দশক (এসআই) আব্দুর রহিমের বিরুদ্ধে উপমহাপুলিশ পরিদর্শক (ডিআইজি) রাজশাহী ও পুলিশ সুপার রাজশাহীসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন মামলার বাদী কাকলী ইয়াসমিন। তিনি মামলাটি পূনারায় তদন্তের জন্য চুড়ান্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে আপিল করেছেন। জানা যায়, উপজেলার হামিরকুৎসা ইউনিয়নের কোনাবাড়ি গ্রামের মোহাম্মদ খামারুর ছেলে এক সময়ের জেএমবি’র শীর্ষ সন্ত্রাসী সিদ্দিকুল ইসলাম ওরফে বাংলা ভাইয়ের সেকেন্ড ইন কমান্ড মাহাতাব খামারু তার আপন বড় ভাই মৃতমমতাজ খামারুর ছেলে মতিউর রহমান রনিকে গত ২০১৯ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারী সন্ধ্যায় জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে চাইনিজ কুড়াল ও হাসুয়া দিয়ে তাকে রক্তাক্ত জখম করে। ওই দিন মাহাতাব খামারু উপস্থিত থেকে মতিউর রহমান রনির ঘর থেকে নগদ ৮০ হাজার টাকা নেয় এবং বাড়িঘর ভাংচুর করে। এলাকার লোকজন রক্তাক্ত রনিকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স বাগমারা ও পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। ওই ঘটনায় রনির স্ত্রী কাকলী ইয়াসমিন থানায় মামলা করতে গেলে তৎকালীন বাগমারা থানার ওসি নাছিম আহম্মেদ মামলা না নিয়ে আদালতে আশ্রয় নিতে বলেন। চিকিৎসা শেষে একই সালের ১২ মার্চ আহত রনির স্ত্রী কাকলী ইয়াসমিন বাদী হয়ে ঘটনার মূল নায়ক জেএমবি’র শীর্ষ নেতা মাহাতাব খামারুকে প্রধান আসামী করে আরো তিনজনের বিরুদ্ধে রাজশাহীর আদালতে একটি মামলা দায়ের করে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে বাগমারা থানার ওসিকে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। আদালতের নির্দেশ পেয়ে বাগমারা থানার ওসি মামলাটি রের্কড করে আসামীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া শুরু করে। মামলাটি দীর্ঘদিন তদন্ত শেষে মামলার মূল আসামী জেএমবি’র শীর্ষ নেতা মাহাতাব খামারু ও সেলিনা বেগমকে অব্যাহতি দিয়ে আদালতে চুড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন যোগীপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপপরির্দশক (এসআই) আব্দুর রহিম। বিষয়টি জানাজানি হলে মামলার বাদী কাকলী ইয়াসমিন আদালতে যোগাযোগ করে জানতে পারে ঘটনার মূল আসামী মাহাতাব কামারুসহ দুইজনকে বাদ দিয়ে মামলার চুড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছেন। পুলিশের এমন প্রতিবেদনে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকার সচেতন মহল। মাহাতাব খামারুকে অব্যাহতি দেয়ায় সাধারন মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। মামলার বাদী কাকলীর অভিযোগ, ঘটনার সময় যারা ঘটনাটি দেখেছে তাদেরকেই এজাহারে স্বাক্ষী হিসেবে নাম দেয়া হয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওই সকল স্বাক্ষীদের স্বাক্ষী না নিয়ে নিজের মনগড়া ভাবে স্বাক্ষী সাজিয়ে মামলার চুড়ান্ত প্রতিবেদনটি দাখিল করেছেন। তিনি মামলাটি পুনরায় তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা যোগীপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রহিম বলেন, ঘটনার সাথে জড়িত থাকার প্রমান না পাওয়ায় মাহাতাব খামারুসহ দুইজনকে মামলা থেকে অব্যাহিত দিয়ে চড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। স্বাক্ষীর বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি ওই বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি।

Please follow and like us:
error13
Tweet 20
fb-share-icon20

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 3590885আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 17এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৭৪৯৮২৩৭০৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET