১লা অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই সফর, ১৪৪২ হিজরি

[gtranslate]

শিরোনামঃ-

বন্যার পানি নেমে যাওয়ার সাথে সাথেই গাইবান্ধায় আমন চাষের ধুম

আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা করেসপন্ডেন্ট।

আপডেট টাইম : আগস্ট ২০ ২০২০, ২২:৪৫ | 689 বার পঠিত

গাইবান্ধায় বন্যার পানি নেমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা এবং চরাঞ্চলগুলোতে বন্যার ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে নিতে কৃষকরা ব্যাপকভাবে আমন চারা রোপনের কাজ শুরু করেছে।
উল্লেখ্য, এবারে জেলায় ১ লাখ ২৬ হাজার হেক্টর জমিতে আমন ধান চাষের কর্মসূচী নেয়া হয়েছে। এরমধ্যে ১ লাখ ৯ হাজার ৯৩০ হেক্টর জমিতে উফসী, ১ হাজার ৭০ হেক্টর জমিতে হাইব্রিড এবং ১৫ হাজার হেক্টর জমিতে স্থানীয় জাতের আমন চাষের কর্মসূচী নেয়া হয়েছে। আমন চাষ সফল করতে ইতিমধ্যে ৬ হাজার ৫৪০ হেক্টর জমিতে বীজতলা স্থাপন করা হয়েছে। সাম্প্রতিক বন্যায় এবারে জেলায় ৮৫ হেক্টর জমির আমন বীজতলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর সাহায্যে ১ হাজার ৭০০ হেক্টর জমিতে আমন রোপা লাগানো সম্ভব হতো। কৃষি বিভাগ এই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে ১০৫ হেক্টর জমিতে বিশেষ ব্যবস্থায় বীজতলা স্থাপন করেছে। এর সাহায্যে ৭ হাজার বিঘা জমিতে আমন চাষ সম্ভব হবে।
গাইবান্ধা কৃষি বিভাগের উপ-পরিচালক মাসুদুর রহমান জানান, বীজতলার ক্ষতি আমন চাষে কোন প্রভাব ফেলবে না। জেলায় যে বীজতলা স্থাপন করা হয়েছে তা লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী আমন চাষ করেও উদ্বৃত্ত হবে। তিনি আরও জানান, ইতিমধ্যে জেলায় ৮৪ হাজার ৩০০ হেক্টর জমিতে আমন রোপা লাগানোর কাজ সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চারা রোপনের কাজ অব্যাহত থাকবে। এতে এই বোরো লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে তিনি আশা করছেন। লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হলে এবারে জেলায় ৩ লাখ ৪১ হাজার ৬০৯ মে. টন আমন চাল উৎপাদিত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4109524আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 8এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET