১লা নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ১৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৪ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪২ হিজরি

[gtranslate]

শিরোনামঃ-

বন্ধের পথে ৩১৯ পোশাক কারখানা: বিজিএমইএ

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : মে ১৫ ২০১৬, ০০:৪৭ | 648 বার পঠিত

garmentsবিশ্ব বাজারে প্রতিযোগিতায় টিকতে না পেরে বাংলাদেশের ৩১৯টি পোশাক কারখানা বন্ধ হওয়ার পথে রয়েছে বলে জানিয়েছে এই খাতের শিল্পমালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বিজিএমইএ কার্যালয়ে শনিবার পোশাক শিল্পের সার্বিক পরিস্থিতি জানাতে এক সংবাদ সম্মেলনে এই শঙ্কার কথা প্রকাশ করেন সংগঠনটির সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘উদ্বেগের বিষয় যে গত তিন বছরে বিভিন্ন কারণে সক্ষমতা হারিয়ে ৬১৮টি কারখানা বন্ধ হয়ে গেছে। আরো ৩১৯টি কারখানা বন্ধ হওয়ার পথে।’

গ্যাস-বিদ্যুতের সঙ্কট ও ব্যাংক ঋণের উচ্চ সুদহার, ডলারের অবমূল্যায়ন ও বিশ্ববাজারে পোশাকের দরপতনের কারণে শিল্প উদ্যোক্তারা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে বলে জানান বিজিএমই সভাপতি।

এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে টিকে থাকতে সেই সাথে রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাকশিল্পের জন্য উৎসে কর কর্তনের হার অর্ধেক কমিয়ে গত অর্থবছরের মতো শূন্য দশমিক ৩ শতাংশে নামিয়ে আনার দাবি জানান তিনি।

পাশাপাশি পোশাক শিল্পের সহযোগী খাতগুলোকে মূল্য সংযোজন করমুক্ত (মূসক) রাখার এবং অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রপাতি আমদানি শুল্কমুক্ত করারও দাবি তোলা হয়।

ছিদ্দিকুর বলেন, ‘শতভাগ রপ্তানিমুখী শিল্প ভ্যাটমুক্ত হলেও রপ্তানি সহায়ক সেবাগুলোর ওপর ভ্যাট প্রযোজ্য আছে। রপ্তানি সহায়ক সেবাগুলো ভ্যাটমুক্ত করার অনুরোধ করছি।’

পোশাকশিল্প ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘চলতি অর্থ বছরের প্রথম ১০ মাসে (জুলাই’১৫ থেকে এপ্রিল’১৬) পোশাকখাতে ১০ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। কিন্তু সেটা প্রতিযোগিতার বাজার ও নির্ধারিত লক্ষ্য পূরণে যথেষ্ট নয়।’

গত পাঁচ বছর ধরে ১০ শতাংশ হারের রপ্তানি আয়ের গড় প্রবৃদ্ধি এবার আরো বাড়ার প্রত্যাশা ছিল বলে জানান বিজিএমই সভাপতি।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের পরেও গ্যাস সঙ্কটের সমাধান হচ্ছে না বলে অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলনে এই বিজিএইএ নেতা বলেন, ‘অনেক শিল্প প্রতিষ্ঠান নিরাপদ কারখানা প্রতিষ্ঠায় স্থানান্তরিত হতে চাচ্ছে; অনেকে গ্রিন ক্যাটাগরিভুক্ত হয়েছে, অনেকে চেষ্টা করছে। কিন্তু গ্যাসের অভাবে কারখানা সচল করতে পারছে না।’

‘আশুলিয়া, সভার, গাজীপুর, কোনাবাড়ি, রূপগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জসহ বেশকিছু এলাকায় দৈনিক ৫ থেকে ৭ ঘণ্টা লোডশেডিং হচ্ছে। নুতন বিদ্যুৎ সংযোগ ও লাইন স্থানান্তর নিয়েও হয়রানির শিকার হয় শিল্প মালিকরা।’

অন্যান্যের মধ্যে বিজিএমইএর সহসভাপতি ফারুক হাসান, এস এম মান্নান, মাহমুদ হাসান খান, মোহাম্মদ নাছির এসময় উপস্থিত ছিলেন

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4168330আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 2এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET