৩০শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৪ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

[gtranslate]

শিরোনামঃ-

পদ্মার ভাঙনে ঝুঁকরি মুখে রাজশাহী টি রক্ষা বাঁধ

হুমায়ন আরাফাত, আশুলিয়া করেসপন্ডেন্ট।

আপডেট টাইম : জুলাই ০৬ ২০১৭, ২২:৩২ | 604 বার পঠিত

নাজমি হাসান,রাজশাহী প্রতনিধি:

প্রতবিছরই র্বষা মৌসুমে ঝুঁকরি মধ্যে পড়ে রাজশাহী শহর রক্ষা বাঁধ সংলগ্ন ট-িবাঁধ। নগরীর শ্রীরামপুর এলাকায় পুলশি লাইনরে সামনরে এই গ্রোয়নেে গতবছর ফাটলও দখো দয়িছেলি। কন্তিু পানি কমার পর সটেি স্থায়ীভাবে সংস্কার করা হয়ন।ি এবার আবারও পদ্মায় পানি বাড়তে শুরু করায় সখোনে ফলো হচ্ছে বালুর বস্তা। পানি বশিষেজ্ঞরা বলছনে, এ ধরনরে কাজরে কোনো বজ্ঞৈানকি ভত্তিি নইে। এভাবে ভাঙন ঠকোনোও সম্ভব নয়। আর স্থানীয়রা অভযিোগ করছনে, বালুর বস্তা ফলোর নামে বছর বছর এখানে শুধু সরকাররে র্অথরেই অপচয় করা হচ্ছ। এতে পকটে ভরছে ঠকিাদারী প্রতষ্ঠিান ও পানি উন্নয়ন র্বোডরে র্কমর্কতাদরে। সরজেমনিে গয়িে দখো গলে, ট-িগ্রোয়নেরে পাশইে বড় একটি বালুর স্তুপ। সখোন থকেে বালু ভরা হচ্ছে জ-িও ব্যাগ। নৌকায় তুলে সসেব ব্যাগ ট-িবাঁধরে আশপাশে ফলোও হচ্ছ। বশেকছিু শ্রমকি এসব কাজ করছনে। আর একটু দূরইে তরৈি করে রাখা হয়ছেে কছিু কংক্রটিরে ব্লক। স্থানীয়রা জানালনে, ট-িবাঁধরে পাশে যখোনে এখন বালুর বস্তা ফলো হচ্ছ,ে শুষ্ক মৌসুমে তার পাশ থকেইে তোলা হয় বালু। এতে নদীতে একটু পানি বাড়লইে ঝুঁকতিে পড়ে ট-িবাঁধ। এবারও সামান্য পানি বৃদ্ধরি সঙ্গে সঙ্গে বাঁধটি ঝুঁকরি মধ্যে পড়ছে। বাঁধরে এমন ঝুঁকরি কথা শুনে দুপুরে রাজশাহী মহানগর ওর্য়ার্কাস র্পাটরি সাধারণ সম্পাদক দবোশীষ প্রামানকি দবেুর নতেৃত্বে দলটরি স্থানীয় কয়কেজন নতো ট-িবাঁধ পরর্দিশনে যান। এ সময় দবোশীষ প্রমানকি দবেু ঢাকাটাইমসকে বলনে, জ-িও ব্যাগ ফলোটা কোনো সমাধান নয়। এর কোনো যৌক্তকিতাও নইে। রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরষিদরে সাংগঠনকি সম্পাদক দবেু বলনে, শুষ্ক মৌসুমে এখান থকেইে বালু তোলা হয়। আর এখন সখোনইে বালু ফলো হচ্ছ।ে বষিয়টি হাস্যকর। রাজশাহী শহরকে রক্ষা করতে হলে এই এলাকা থকেে বালু তোলা বন্ধ করতে হব।ে তারপর ট-িগ্রোয়নেরে স্থায়ী সংস্কার করতে হব। পদ্মার পানরি তোড়ে গতবছর পানি উন্নয়ন র্বোডরে (পাউবো) এই ট-িগ্রোয়নেটতিে ফাঁটল দখো দয়ে। এতে প্রায় ৫ মটিার ভঙেে যায়। এছাড়া আরও প্রায় ৫ ফুট দবেে যায়। এই বাঁধ ভঙেে গলেে ভাঙন ধরবে শহর রক্ষা বাঁধ। এতে সহজইে বলিনি হয়ে যাবে পুলশি লাইনসহ সরকারি র্ঊধ্বতন র্কমর্কতাদরে বশেকছিু বাংলো। পাশাপাশি শহরওে ঢুকবে পান। পাউবো সূত্রে জানা গছে, পদ্মার পানরি বপিদসীমার ১৮ দশমকি ৫০ মটিার ওপর।ে গতবছর বপিদসীমার মাত্র ৪ সন্টেমিটিার নচি দয়িে প্রবাহতি হয়ছেলি পান। এতইে ক্ষতগ্রিস্ত হয় ট-িবাঁধ। এবার গতবাররে মতো পানি প্রবাহতি হলওে ব্যাপক ক্ষতরি আশঙ্কা করা হচ্ছ। মঙ্গলবার ওই এলাকায় পানরি প্রবাহ ছলি ১১ দশমকি ২৯ মটিার। গত প্রায় ১০ দনি থকেে নদীর পানি বাড়ছ। পাউবোর রাজশাহীর নর্বিাহী প্রকৌশলী মোখলসেুর রহমান জানান, গতবছর ট-িবাঁধ ক্ষতগ্রিস্ত হওয়ার পর সটেি সংস্কারসহ আরও কয়কেটি কাজরে জন্য মন্ত্রণালয়ে তারা সোয়া দুই কোটি টাকার চাহদিা দনে। কন্তিু বরাদ্দ মলেে ৫০ লাখ টাকা। সইে টাকাতইে ট-িবাঁধে জ-িও ব্যাগ ফলোর কাজ চলছ। তনিি আরও বলনে, তবে দরপত্র আহ্বান করা হয়ছেে সোয়া দুই কোটি টাকারই। এর মধ্যে জওিব্যাগ ফলোসহ ব্লক স্থাপন এবং ট-িবাঁধরে ওপররে কাঁটাতাররে জাল বসানোর কাজ আছ।ে রাজশাহীর এএস কন্সট্রাকশন নামে একটি ঠকিাদারী প্রতষ্ঠিান কাজটি করছ। আগামী বছররে জুলাই র্পযন্ত কাজ চলবে বলওে জানান তনি।ি এসব কাজরে মধ্যে দয়িে স্থায়ী সমাধান হচ্ছে কী না, জানতে চাইলে প্রকৌশলী মোখলসেুর রহমান সরাসরি কোনো মন্তব্য করনেন।ি তবে তনিি বলছেনে, চাহদিা অনুযায়ী র্অথ বরাদ্দ না পয়েে তারা সঠকিভাবে কাজ করতে পারছনে না। বরাদ্দরে র্অথ দয়িে যা কাজ হয় তাই করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করনে তনি। সরজেমনিে ট-িবাঁধ পরর্দিশন করছেনে সরকাররে পানি বষিয়ক টাস্কর্ফোসরে সদস্য ও রাজশাহী বশ্বিবদ্যিালয়রে ভূ-তত্ব ও খনবিদ্যিা বভিাগরে প্রফসের চৌধুরী সারওয়ার জাহান। তনিি বলনে, ট-িবাঁধে যে কাজ চলছে তার বজ্ঞৈানকি কোনো ভত্তিি নইে। গবষেণা না করইে সখোনে অপরকিল্পতিভাবে জ-িও ব্যাগ ফলো হচ্ছ। এটি স্থায়ী কোনো সমাধান নয়। এতে ভাঙনরে ঝুঁকি কমছওে না।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4213540আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 11এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET