৩১শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪২ হিজরি

[gtranslate]

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • বাংলার অগ্রগতি
  • নাঙ্গলকোটে প্রধান শিক্ষকের ব্যাপক অনিয়ম পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা বর্জন: অভিভাবকের গণ স্বাক্ষর

নাঙ্গলকোটে প্রধান শিক্ষকের ব্যাপক অনিয়ম পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা বর্জন: অভিভাবকের গণ স্বাক্ষর

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : এপ্রিল ৩০ ২০১৬, ১৭:৩২ | 658 বার পঠিত

school hadmaster Nangolkot news pic-1 মো: কামাল হোসেন জনি:
কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার জোড্ডা ইউপির বাইয়ারা জয়নাল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু বক্কর মজুমদার এর বিরুদ্ধে মডেল টেষ্ট পরীক্ষার নামে অতিরিক্ত চাঁদা আদায়সহ ব্যাপক অনিয়ম ও দূর্ণীতি করার কারণে আজ  শনিবার পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা বর্জন করেন ও প্রধান শিক্ষককে অপসারনের দাবিতে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে অভিভাবকরা গণ স্বাক্ষর করেন।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, উপজেলার বাইয়ারা জয়নাল উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণীর প্রায় ৬ শত ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য মডেল টেষ্ট পরীক্ষার আয়োজন করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু বক্কর মজুমদার। মডেল টেষ্ট পরীক্ষার ও বিদ্যালয়ের বিভিন্ন খরচ দেখিয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর প্রতিজন শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ১ হাজার ২ শত ৫০, ৭ম শ্রেণী থেকে ১ হাজার ৩ শত ৫০, ৮ম শ্রেণী থেকে ১ হাজার ৪ শত ৫০ ও নমব-দশম শ্রেণী ১ হাজার ৬ শত ৫০ টাকা ফি ধার্য্য করেন। এর প্রতিবাদে শনিবার সকাল থেকে পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা বর্জন করেন। ব্যাপক অনিয়ম ও দূর্ণীতি করার কারণে প্রধান শিক্ষককে অপসারনের দাবিতে এ সময় অভিভাবকরা বিদ্যালয়ে প্রাঙ্গণে গিয়ে গণ স্বাক্ষর করেন। তার বিরুদ্ধে ছাত্রী ও শিক্ষিকাকে নিয়ে অনৈতিক সম্পর্ক করার অভিযোগ উঠেছে।
এ ব্যাপারে দশম শ্রেণীর ব্যবসা শিক্ষা শাখার ছাত্র ফরহাদ বলেন, প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ের বিভিন্ন খরচ ও মডেল টেষ্ট পরীক্ষার নামে আমাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করেন। এর প্রতিবাদে আমরা পরীক্ষা বর্জন করি।
এ বিষয়ে রিক্শা চালক মহশিন বলেন, তার ছেলে রিয়াজ ৭ম শ্রেণীতে পড়ে। মডেল টেষ্ট পরীক্ষার দেওয়ার জন্য ১ হাজার ৩ শত ৫০ টাকা ফি ধার্য্য করে। ফি না দিলে পরীক্ষা দিতে পারবে না। আমি স্কুলে গেলে প্রধান শিক্ষক আবু বক্কর মজুমদার বলেন টাকা না দিতে পারলে ছেলেকে কেন স্কুলে পড়ান। কাজে লাগিয়ে দিলেতো টাকা পাবেন। এসব কথা বলে স্কুল থেকে তাড়িয়ে দেয়।
এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু বক্কর মজুমদার বিভিন্ন খাত দেখিয়ে টাকা নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো: মোনাজের রশিদ সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করলে, কি অভিযোগ বলে তিনি ফোনের লাইন কেটে দেয়।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4167164আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 5এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET