২৯শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

[gtranslate]

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • সকল সংবাদ
  • তজুমদ্দিনে শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রী হয়রানি ও উত্যক্ত করার প্রতিবাদে মানববন্ধন

তজুমদ্দিনে শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রী হয়রানি ও উত্যক্ত করার প্রতিবাদে মানববন্ধন

হুমায়ন আরাফাত, আশুলিয়া করেসপন্ডেন্ট।

আপডেট টাইম : জুলাই ১০ ২০১৭, ২২:৫০ | 629 বার পঠিত

নিরব হোসেন,ভোলা :

তজুমদ্দিনে ফজিলতুন্নেছা সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রীদের বিভিন্ন ভাবে হয়রানি ও উত্যক্ত করার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেছে। পরে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা ওই শিক্ষকের বিচার চেয়ে জেলা প্রশাসক ভোলা, উপ-পরিচালক শিক্ষা অধিদপ্তর বরিশাল, উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা তজুমদ্দিন, প্রেসক্লাব ভোলা ও তজুমদ্দিনসহ বিভিন্ন দপ্তরে স্বারকলিপি প্রদান করেন।লিখিত অভিযোগে জানা যায়, ফজিলতুন্নেছা সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মীর এনায়েত হোসেন ক্লাসে নানা অযুহাতে ছাত্রীদের গায়ে হাত দেয়, খারাপ ইঙ্গিত করে কুরুচিপূর্ণ কথা-বার্তা বলা, কারণে-অকারণে শিক্ষার্থীদের সাথে অসৌজন্য মূলক আচরণ করা ও তার কাছে প্রাইভেট না পড়লে পরীক্ষার খাতায় নম্বর কমিয়ে দেয়া, স্কুল চলাকালীন সময়ে ফেজবুকের মাধ্যমে ছাত্রীদের খারাপ ছবি দেখানোসহ বিভিন্ন অযুহাতে হয়রানি ও উত্যক্ত করতেন। মান-সম্মানের ভয়ে শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা গোপনে এবিষয়ে বিচার চেয়ে অন্য শিক্ষকদের অবহিত করলেও তার কোন প্রতিকার হয়নি। কিন্তু সহকারী শিক্ষক মীর এনায়েতের উশৃঙ্খল আচরণ দিন দিন আরো বাড়তে থাকে।অভিযোগ আরো জানা যায়, ২০১৫ সালে ওই বিদ্যালয়ের ১০ শ্রেণির একছাত্রীকে নিয়মিত উত্যক্ত করতেন এবং ২০১৬ সালে ৯ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দেন এবং তার নিজের বাসায় প্রাইভেট পড়ানো সময় এক ছাত্রীর গায়ে হাত দেন। পরে এসব ঘটনা জানাজানি হলে সু-চতুর শিক্ষক মীর এনায়েত হোসেন রাতের আধারে ওই সব শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের হাতে পায়ে ধরে ম্যানেজ করতে স্বক্ষম হন। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৬ জুলাই স্কুলের পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে ৯ম শ্রেণির ২ ছাত্রীর সাথে পূর্বের ন্যায় অসৌজন্যমূলক আচরণ করতে থাকে। এসব ঘটনার প্রতিবাদে ওই স্কুলের শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা একযোগ হয়ে গত ৯ জুলাই দুপুর ১ টায় স্কুলের সামনে দীর্ঘ এই মানববন্ধন পালন করেন।এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক দিলিপ কুমার জানান, বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অভিযোগ আমরা সমাধান করার চেষ্টা করেছি। এ ব্যাপারটি আমাদের নিয়ন্ত্রণের বাহিরে চলে গেছে এবং উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তজুমদ্দিন উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা জালাল উদ্দীন বলেন, ছাত্রী ও অভিভাবকদের কাছ থেকে এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4211968আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 25এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET