২০শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪২ হিজরি

[gtranslate]

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • মিডিয়া
  • ছাগলনাইয়ায় সবুজ মেম্বারকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে দাবি করে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

ছাগলনাইয়ায় সবুজ মেম্বারকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে দাবি করে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

নজরুল ইসলাম চৌধুরী, জেলা করেসপন্ডেন্ট,ফেনী।

আপডেট টাইম : অক্টোবর ১৩ ২০২০, ০০:০৭ | 763 বার পঠিত

ধর্ষন মামলার ঘটনা শালিস বৈঠকের মাধ্যমে দামাচাপা দেয়ার অভিযোগে ছাগলনাইয়া উপজেলাধীন মহামায়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ন আহবায়ক নুরুল করিম চৌধুরী প্রকাশ সবুজ মেম্বারকে গত ৬ অক্টোবর ছাগলনাইয়া থানার পুলিশ গ্রেফতার করে। পরদিন বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। এ ধর্ষণ মামলার বাদিনীর (ভিকটিমের) এজাহার অনুযায়ী প্রধান আসামি জয়নগর ভুইয়া বাড়ীর আবুল কাসেম’র ছেলে ধর্ষক ফজলুল করিম প্রকাশ বাবু (২৪)।
সবুজ মেম্বারকে যে অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে তা সম্পুর্ন মিথ্যা দাবি করে ১২ অক্টোবর বিকেলে ছাগলনাইয়া প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলন করে স্ত্রী তাছলিমা আক্তার।
লিখিত বক্তব্যে সবুজ মেম্বারের স্ত্রী বলেন, একটি যুবতি মেয়ে ও একটি যুবকের ধর্ষনের ঘটনার শালিসদার হিসেবে মামলায় সবুজ মেম্বারকে ফাঁসানো হয়েছে।
প্রকৃত পক্ষে মূল ঘটনা হচ্ছে, ছাগলনাইয়া উপজেলার সত্যনগর গ্রামের এক মেয়ের সাথে জয়নগর গ্রামের ফজলুল করিম প্রকাশ বাবুর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে এবং কাউকে না জানিয়ে ছেলে মেয়ের সম্মাতিতে বিবাহ করে ফেলে। বিবাহ পরবর্তিতে তারা স্বামী-স্ত্রীর সহবাসে মিলিত হয় কিন্তু তখনও কাবিন সম্পন্ন করা হয়নি। ভিকটিম কাবিনের জন্য বাবুকে চাপ প্রয়োগ করলে এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। এলাকার মেয়ের সম্মান রক্ষার্থে এলাকার গণ্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গসহ প্রায় ৪০/৫০ জন মিলে গঠিত সমস্যাটির সমাধানের জন্য একটি শাল্লিস বৈঠকের আয়োজন করে। কথামত শালিসী বৈঠকে সবাই বসলে একটি কুচক্র মহল থানায় উক্ত বিরোধটি মিমাংসা করে দিবে বলল ভিকটিমকে থানায় নিয়ে এসে ফজলুল করিম প্রকাশ বাবু, রেজিয়া বেগম, রাবিয়া আক্তার মুক্তা, আবুল হোসেন, নুরুল করিম চৌধুরী সবুজ মেম্বার, মুসা মিয়া, মনির চৌধুরী, নুরুল ইসলামসহ অজ্ঞাত ৫/৬জনকে বিবাদী করে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করে।
তাছলিমা আক্তার আরো বলেন, উক্ত মামলায় ৪-৮নং আসামীদের বিরুদ্ধে নাজেহাল করার অভিযোগ আনা হয়। এখানে উল্লেখ করার বিষয় হচ্ছে নাজেহাল আর ধর্ষণ কি এক কথা। এলাকায় যে কোন সমস্যা দেখা দিলে ইউপি সদস্য হিসেবে আমার স্বামী বিরোধ মিমাংসা করার চেষ্টা করে। এখানে নাজেহাল করার কি আছে? যদি এইভাবে হয়, তাহলে সমাজ থেকে শালিসী ব্যবস্থা উঠে যাবে। আমার স্বামী সবুজ মেম্বার গত ২বার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিপুল সংখ্যক ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছে এবং বর্তমানে মহামায়া ইউনিয়ন পরিষদে প্যানেল চেয়ারম্যান হিসেবে এলাকার জনসাধারনের সেবা করে আসছে। আসন্ন ইউনিয়ন নির্বাচনকে সামনে রেখে ও আমার স্বামীর জনপ্রিয়তার কারণে একটি কুচক্রি মহল সক্রিয় হয়ে উঠেছে। কিভাবে আমার স্বামীকে আসন্ন ইউপি নির্বাচন থেকে দূরে সরিয়ে রাখা যায়? সেই কাজটি করে যাচ্ছে। এভাবে মিথ্যা ও হয়রানি মূলক মামলায় যদি জনপ্রতিনিধিদেরকে দেওয়া দেওয়া হয়, তাহলে জনপ্রতিনিধিরা কিভাবে মানুষের পক্ষে কাজ করবে? আমি উক্ত হয়রানী মূলক ও মিথ্যা মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। উক্ত মিথ্যা ও হয়রানী মূলক মামলার কারণে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। তাই বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখার জন্য আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, ফেনী-২ আসনের সাংসদ ও ফেনী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী সাহেব, ফেনী- ১ আসনের সাংসদ শিরীন আখতার আপা এবং ফেনী জেলা পুলিশ সুপার নুরুন নবী বিপিএম পিপিএম’র দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আপনারা আমার স্বামীকে মিথ্যা ও হয়রানী মুলক মামলা থেকে মুক্তি দিবেন এবং এইভাবে আর যেন কাউকে মিথ্যা ও হয়রানী মূলক মামলা দিতে না পারে সেদিকে অবশ্যই খেয়াল রাখবেন। উক্ত মামলার ভিকটিমের সাথে জড়িয়ে থাকা কুচক্তি মহলটিকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য বিনীত ভাবে অনুরোধ করিতেছি।
Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4149023আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 11এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET