২রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার, ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৬ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

[gtranslate]

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • নারী ও শিশু
  • গ্রাম্য শালিসি বৈঠকে স্বামীর অধিকার বঞ্চিত হওয়ায় ছাগলনাইয়ায় অন্তঃসত্ত্বা যুবতীর আত্মহত্যা ।

গ্রাম্য শালিসি বৈঠকে স্বামীর অধিকার বঞ্চিত হওয়ায় ছাগলনাইয়ায় অন্তঃসত্ত্বা যুবতীর আত্মহত্যা ।

হুমায়ন আরাফাত, আশুলিয়া করেসপন্ডেন্ট।

আপডেট টাইম : মে ৩১ ২০১৭, ২১:১৩ | 675 বার পঠিত

নজরুল ইসলাম চৌধুরীঃ
গ্রাম্য শালিসি বৈঠকের মাধ্যমে  স্বামীর অধিকার বঞ্চিত হওয়ায় ছাগলনাইয়া উপজেলার মহামায়া ইউপি’র মধ্যম মাটিয়াগোদা গ্রামের জয়নাল উদ্দিন ও মনোয়ারা বেগমের অন্তঃসত্ত্বা মেয়ে ময়না আক্তার ফেন্সি (১৮) আত্ম হত্যা করেছে বলে খবর পাওয়াগেছে। ময়নার দাদী নুর নেহার বেগম (৮৫) বলেন, ময়নার সাথে একই গ্রামের আবদুল বারকের ছেলে মোঃ হানিফ (২২) প্রকাশ বোমা হানিফের সাথে গত চার-পাঁচ মাস আগ থেকে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিলো। হানিফের সৎ বোন লায়লার বসত ঘর মায়নাদের পাশেই। হানিফের বোন লায়লা বেগম ও তার মেয়ে রহিমা আক্তারের সহযোগিতায় হানিফ ও ময়নার মাঝে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে উঠে এবং মায়না দেড় মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়। ময়নার বড় বোন সীমা আক্তার জানায়, আমার বোন আন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় বিষয়টি হানিফকে জানালে সে তার পরিবারের লোকদের জানায় কিন্তু হানিফের পরিবার এটি মানতে রাজি না থাকায় হানিফ ও ময়না গত আট-দশ দিন পুর্বে ফেনীর কদলগাজী রোড়স্থ একটি স্থানে বিয়ে করে। বিয়ের বিষয়টি হানিফের পরিবারের লোকজন জানলে তারা ময়নাকে ঘরের বউ হিসেবে মেনে নিবেনা বলে জানায়। এক পর্যায়ে হানিফ ময়নাকে অস্বীকার করে। মঙ্গলবার (৩০) মে রাতে এ বিষয়ে গ্রাম্য এক শালিসী বৈঠক হয়। বৈঠকে এলাকার চেয়ারম্যান বা মেম্বার কেউকে না রেখে এলাকার সাবেক মেম্বার কাইয়ুম, নুরুল আলম মিজী, শাহ জাহান মিলু, করীম, আবদুল্লাহ সহ কয়েকজন লোককে হানিফ নিয়ে আসে। ময়নার মা মনোয়ারা বেগম বলেন, বিয়েতে দেনমোহর ছিলো ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা। মঙ্গলবার গ্রাম্য শালিশদাররা ময়নাকে ৪০ হাজার টাকার বিনিময়ে এ বিয়ে বিচ্ছেদ করার প্রস্তাব দেয়। ময়না শালিশদারদের বলেছিলো আমি টাকা চাইনা আমি স্বামীর অধিকার চাই। অবশেষে শালিশদাররা জোরপুর্বক ময়না থেকে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয় এবং কাবিন নামা জমা দিলে ৪০ হাজার টাকা আগামী ৩ মাস পর দেওয়া হবে বলে। ময়নার মা বলেন, শালিশ শেষ হয় রাত ১২ টায়। ভোর রাতে সেহরী খাওয়ার জন্য ময়নাকে ডাকতে গেলে দেখি ময়না গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে ঝুলছে। ময়নার বড় ভাই রিপন বলে, আমার বোনের মৃত্যুর জন্য দায়ী তারা যারা অন্যায় ভাবে টাকা খেয়ে শালিস করেছে। ঘটনাস্থলে মহামায়া ইউপি’র চেয়ারম্যান গরিব শাহ হোসেন বাদশা চৌধুরী যান, তিনি বলেন, ময়নার পরিবার অসহায়। যে বা যাদের কারনে ময়না আত্ম হত্যা করেছে তাদের আইনের আওতায় নিয়া আসা হবে। ঐ এলাকার মেম্বার জমির উদ্দিন বাবু বলেন, যারা এ শালিস করেছে তারা বোমা হানিফকে তাদের ব্যক্তিগত অপকর্মে কাজে লাগায় তাই হানিফের পক্ষে মাত্র ৪০ হাজার টাকার বিনিময়ে এ বিয়ে বিচ্ছেদের রায় দেয়। ফেনীর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ আবদুল মালেক মিয়া ও ছাগলনাইয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু জাফর মোঃ ছালেহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ওসি আবু জাফর মোঃ ছালেহ বলেন, মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে। সঠিক তদন্তপুর্বক ব্যবস্থা নেওয়ার কাজ চলছে। বেলা ১২ টায় ময়নাকে ময়না তদন্তের জন্য ফেনী নেওয়া হয়।
Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4217915আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 8এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET