২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার, ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১০ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪২ হিজরি

[gtranslate]

শিরোনামঃ-

খালেদার বিরুদ্ধে আবার মামলা সেই এ বি সিদ্দিকীর

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : মে ১৬ ২০১৬, ০০:৩৩ | 640 বার পঠিত

a b siddikপ্রধানমন্ত্রীপুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়ের অ্যাকাউন্টে ৩০ কোটি ডলার লেনদেনের বক্তব্য দেয়ায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে একটি নালিশি মামলা করা হয়েছে।

রবিবার সকালে জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী বাদী হয়ে ঢাকার সিএমএম আদালতে এ মামলা করা হয়।

গত ১ মে শ্রমিক দিবসে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভায় বক্তব্য দেওয়ার সময় জয়ের অ্যাকাউন্টে ৩০০ মিলিয়ন ডলার রয়েছে বলে অভিযোগ করেন খালেদা জিয়া।

এ ঘটনায় জয়ের মানহানি হয়েছে অভিযোগ করে মামলাটি দায়ের করা হয়। সকাল ১১টা নাগাদ মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

কে এই এ বি সিদ্দিকী
এ বি সিদ্দিকীর গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায়৷ এখন তিনি দুই ছেলে, এক মেয়ে এবং স্ত্রীকে নিয়ে থাকেন ঢাকার একটি ভাড়া বাসায়। ২০০২ সালে বাংলাদেশ জননেত্রী পরিষদ গঠন করেন তিনি। তার এই সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির মোট সদস্য ১০১ জন। বনানীতে এর কেন্দ্রীয় কার্যালয়৷ তবে বঙ্গবন্ধু এভিনিউর মহানগর আওয়ামী লীগ অফিস, একই এলাকায় খদ্দর মার্কেটে এবং মতিঝিলের একটি অফিসেও তিনি বসেন।

গত বছর এক সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেন, জননেত্রী পরিষদ আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন হিসেবে স্বীকৃত।

এ বি সিদ্দিকের লেখাপড়ার গণ্ডি এসএসসি পার হয়নি। কিছুদিন তিনি সৈনিকের চাকরি করেছেন। এরপর নব্বইয়ের দশকে দৈনিক বাংলা এবং দৈনিক খবরে স্টাফ হিসেবে কাজ করেছেন বলে জানান তিনি।

বর্তমানে তিনি জননেত্রী পরিষদের সভাপতি ছাড়াও দৈনিক ভোরের আলো, সাপ্তাহিক অবদান, চিত্রজগত্-এর সম্পাদক। এছাড়া দৈনিক ভোরের চেতনার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক বলেও নিজেকে দাবি করেন তিনি।

তিনি জানান, এখন তাকে মামলার কাজে সপ্তাহের সাতদিনই আদালতে থাকতে হয়।

মামলার খরচ কীভাবে আসে- জানতে চাইলে এ বি সিদ্দিকী এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ‘আমরা মামলার খরচ চালানোর জন্য একটি কমিটি গঠন করেছি৷ এই কমিটি অর্থ সংগ্রহ করে।’

অবশ্য তিনি জানান, ‘মামলা করতে এবং চালাতে তার তেমন কোনো খরচ হয় না৷ কারণ তিনি আলোচিত মামলা করেন৷ তাই আইনজীবীরা তাদের প্রচারের জন্য বলতে গেলে বিনে পয়সাতেই মামলা করে দেন।’

অন্য এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, তিনি যেসব আইনজীবীকে দিয়ে মামলা করান তারাই উল্টো তাকে টাকা দেন।

এ বি সিদ্দিকী জানান, ‘আমার একটি স্বপ্ন পূরণ হয়েছে৷ বুয়েট-এর শিক্ষক হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা করার পর ২০১৪ সালে জুন মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আমার দেখা করার সুযোগ হয়েছে৷ আমি গণভবনে গিয়ে তার সঙ্গে দেখা করেছি।’

তিনি দাবি করেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমাকে মাথায় হাত দিয়ে সাহস দিয়েছেন।’

এরপর আর দেখা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এখন প্রায়ই আমার গণভবনে যাওয়ার সুযোগ হয়। এতে আওয়ামী লীগের অনেক নেতা আমাকে ঈর্ষা করেন।’

২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে এক সাক্ষৎকারে তিনি বলেছিলেন, ‘সরকার আমার নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে। আমার ঢাকার বাসায় পুলিশি নিরাপত্তা দেয়া হয়েছে। চলাফেরার সময়ও পুলিশি নিরাপত্তা পাই আমি।’

এ বি সিদ্দিকী বলেন, ‘আমার প্রধান কাজ হলো বঙ্গবন্ধু পরিবারের ওপর কোনো ধরণের হামলা বা কটূক্তিকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করা। আমি এই মামলা করেই যাব। প্রয়োজনে মামলা করে করে ফতুর হবো, তবুও থামবো না।’

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4161710আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 1এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET